অবশেষে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়ার অনুমতি দিল জার্মানি

অবশেষে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়ার অনুমতি দিল জার্মানি। দেশটির বৃহত্তম মসজিদ থেকে শুক্রবার আছরের আজান লাউডস্পিকারে দেওয়ার অনুমতি মিলেছে। কোলোন শহর এবং স্থানীয় মুসলিমদের মধ্যে এক সমঝোতার পর এ সংক্রান্ত বিধিনিষেধ শিথিল করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আজ সোমবার নগর কর্তৃপক্ষ এ কথা জানিয়েছে। 

কোলোন শহরে অবস্থিত ৩৫ টির সবকটি মসজিদ থেকেই প্রতি শুক্রবার দুপুর থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত লাউডস্পিকারে আজান দেওয়ার জন্য পাঁচ মিনিট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আগামী দুই বছরের জন্য আপাতত এ অনুমতি বহাল থাকবে। 

এই তালিকায় রয়েছে কোলোন সেন্ট্রাল মস্ক। ২০১৮ সালে এই মসজিদ উন্মুক্ত করার পর মুসলিম বিরোধীদের আক্রোশের লক্ষ্যে পরিণত হয় এটি। বিশেষ করে ২০১৫-১৬ সালের দিকে জার্মানিতে বিপুল সংখ্যক অভিবাসী আসতে শুরু করলে উগ্র ডানপন্থী সংগঠন ও রাজনৈতিক দলগুলো এই মসজিদ নির্মাণ নিয়ে তীব্র আপত্তি জানাতে থাকে। 

মাইকে আজান দেওয়ার অনুমিত প্রসঙ্গে কোলোন শহরের মেয়র হেনরিয়েট রেকের টুইটারে বলেন, মুয়াজ্জিনকে মাইকে আজান দেওয়ার অনুমিত দেওয়া আমার কাছে সম্মান জানানোরই একটা নিদর্শন। 

তিনি আরও বলেন, কোলোন ক্যাথিড্রালের ঘণ্টার সঙ্গে মসজিদে আজানও চলবে। উত্তর ইউরোপের বৃহত্তম গোথিক চার্চ এখানে অবস্থিত। শহরের প্রধান ট্রেন স্টেশন থেকে এই গির্জার ঘণ্টা শোনা যায়। এর অর্থ হলো কোলোন বৈচিত্র্যকে গুরুত্ব দেয় এবং গ্রহণ করে। 

এই মসজিদ নির্মাণ নিয়ে বিতর্কের সময় এর সমর্থকেরা এই সিদ্ধান্তে একমত হন যে, অন্যান্য মুসলিম দেশের মতো এখানে দিনে পাঁচবার লাউডস্পিকারে আজান দেওয়া হবে না। 

নগর কর্তৃপক্ষ বলছে, শুক্রবার বিকেলে আজানের সময় মসজিদ কর্তৃপক্ষ লাউডস্পিকারের ভলিউম সীমিত রাখবে। আজান দেওয়ার আগে তারা প্রতিবেশীদের সংকেত দেবেন। 

জার্মানিতে ৪৫ লাখের মতো মুসলিমের বাস।