সদ্য গ্রে’ফতার হওয়া তুর্না’র সাথে নিজের ছবি নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন তানভীন সুইটি

বাংলাদেশের বিনোদন জগতের এক সময়ের নিয়মিত এবং জনপ্রিয় নাম তানভীন সুইটি। যিনি দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশের বিনোদন জগতে কাজ করে যাচ্ছেন। একটা সময় টিভি খুললেই দেখা যেত তাকে। নাট্য জগতে সব সময় তিনি সক্রিয় ছিলেন বেশ। তবে সম্প্রতি নতুন একটি আলোচনায় এসেছেন তিনি। গতকাল দেশে গ্রেফতার হয়েছে আরো একজন উচ্চমানের প্রতারক। আর সেই প্রতারক মেয়ের সাথে তার একটি ছবি নিয়ে বেশ আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। যার জবাবে মুখ খুলেছেন তানভীন সুইটি। পাঠকদের উদ্দেশ্যে তার দেয়া সেই স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা

আমার পরিবারের লোকজন এবং ক্লোজ বন্ধু এবং পরিবারের বন্ধু ছাড়া, কেউ যদি ছবি তুলতে আসে, তাহলে সে যেন দূরত্ব বজায় রাখেন নিজের উদ্যোগে। অনেক চিন্তা করে দেখলাম এই শহরে সাহেদ, সাবরিনা এবং আরিফের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে, আর এই ধরনের লোকজন ছবিকে অবলম্বন করে সামনের দিকে হেঁটে যায়। এর মধ্যে আরেকজন ধরা পড়লো তুর্না হাসান, ছাত্রলীগ করতো, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করতো, কথাবার্তা ভালো, এমন একটা মেয়ে কীভাবে এ ধরনের প্রতারণার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে, ভাবতেই অবাক লাগে। আসলে সব কিছুর মূলে রয়েছে অর্থ। জীবনে দুটো রাস্তা থাকে, একটি হচ্ছে সৎ হয়ে বেঁচে থাকা, আরেকটি হচ্ছে যে ভাবেই হোক, অর্থ পাওয়ার জন্য, যে কোন ধরনের কাজ আপনি করতে পারবেন।

গত কাল থেকে আমার কিছু শুভকাঙ্খী আমার মেসেঞ্জারে লিখে যাচ্ছে, আপা তুর্না’র সাথে ছবি আপনার, আপনি ট্যাগ সরিয়ে ফেলেন, তো আমি উত্তর দিলাম, ভাই কতো মানুষের সাথে আমাদের ছবি তুলতে হয়…। এখন কে তুর্না, কে সাবরিনা, কে পাপিয়া সেটা তো আমরা জানি না এবং আমাদের জানারও কথা নয়। কেউ যদি ছবি তুলতে আসে আপনি কি করে মানা করবেন। আর সেলিব্রিটিদের সাথে সবাই ছবি তুলতে আসবে এবং এটাই স্বাভাবিক। মেসেজে আমার যে সকল ভাই এবং বোনেরা আমাকে সাবধান করেছেন তাদেরকে অনেক ধন্যবাদ জানাই।

আমিও অনেক সময় অনেকের সাথে ছবি তুলেছি, যেমন আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সাথে ছবি তুলেছি, এখন এই ছবিটির সম্মান দেয়ার চেষ্টা আমাকে করতে হবে। আমি এমন কিছু কখনোই করবো না, যেন এই ছবিটির অবমূল্যায়ন না হয়, ইনশাআল্লাহ সেটা আমি করবো। এটা আমার দায়িত্ব…পরিবার এবং সমাজ নিয়ে আমাদের বাঁচতে হয়, এই ছোট জীবনটাকে উপভোগ করুণ অত্যন্ত সততার সাথে। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

৯০ এর দশক থেকে বাংলাদেশের বিনোদন জগতে পা রাখেন সুইটি। এর পর থেকেই কাজ করেছেন একটানা। বিশেষ করে বাংলা নাটকের নিয়মিত মুখ ছিলেন এক সময়। এ ছাড়াও টিভি বিজ্ঞাপনে তাকে দেখা যেত নিয়মিত। তবে এখন আর তেমনটা হয় না। কাজ কমিয়ে দিয়েছেন তিনি।