বিশ্বের সবচেয়ে বসবাসযোগ্য শহর :তালিকায় আছে কানাডার ক্যালগেরি, ভ্যাঙ্কুভার ও টরন্টো

Skyline of Toronto, Canada

বিশ্বের সবচেয়ে বসবাসযোগ্য শহরের তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যের ইকোনমিস্ট ইনটেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ)। স্বাস্থ্যসেবা, অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের হার, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, অবকাঠামো, সবুজ এলাকা ইত্যাদি সূচক বিবেচনায় ১৭৩টি শহর নিয়ে তালিকাটি করা হয়েছে। ব্রিটিশ সাময়িকী ইকোনমিস্টের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান ইআইইউর তৈরি করা ২০২২ সালের ‘বৈশ্বিক বসবাসযোগ্য সূচকে’ এবার গত বছরের চেয়ে কিছুটা ভিন্নতা লক্ষ করা যাচ্ছে। খবর সিএনএনের।

এ বছর বসবাসযোগ্য শহরের তালিকায় থাকা শীর্ষ ১১টি শহরের মধ্যে ৬টিই ইউরোপের (যৌথভাবে দশম স্থানে রয়েছে দুটি শহর)। তালিকায় প্রথম স্থানে আছে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা। ২০২১ সালে সিএনএন আখ্যায়িত ইউরোপের ‘শান্ত রাজধানী’ ডেনমার্কের কোপেনহেগেন আছে দ্বিতীয় স্থানে। সবচেয়ে বসবাসযোগ্য শীর্ষ ১০ শহরের মধ্যে একমাত্র সুইজারল্যান্ডের দুটি শহর আছে। জুরিখের অবস্থান এবার তৃতীয়।

এ ছাড়া দেশটির অন্যতম প্রধান শহর জেনেভা রয়েছে ষষ্ঠ স্থানে। তবে সার্বিক বিবেচনায় কোনো দেশকে জয়ী বলতে হলে সেই দেশটি কানাডা। বসবাসযোগ্য শহরের ।

সূচকটি যাঁরা তৈরি করেছেন, তাঁরা লিখেছেন, ‘করোনাভাইরাস মহামারির আগে যে শহরগুলো আমাদের তৈরি এই সূচকে শীর্ষ অবস্থানে ছিল, সেসব শহর আবার স্থিতিশীলতা, ভালো অবকাঠামো ও অন্যান্য পরিষেবার পাশাপাশি উপভোগ্য অবসর কর্মকাণ্ড স্বাভাবিক করার মধ্য দিয়ে পুনরায় সূচকের শীর্ষ স্থানে ফিরে এসেছে।’

গত বছর এই তালিকায় শীর্ষে ছিল নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড। এবারের তালিকায় শহরটি শীর্ষ দশে তো নেই-ই আশ্চর্যজনকভাবে ৩৪তম অবস্থানে নেমে গেছে। এবার তালিকায় সবচেয়ে বড় পতন হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার। এর আগে বসবাসযোগ্য শহরের তালিকায় শীর্ষে থাকলেও এবার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের অবস্থান দশম।
গত বছর তালিকায় আধিপত্য ছিল অস্ট্রেলিয়ার। মেলবোর্নের সঙ্গে শীর্ষ ১০টি শহরের তালিকায় ছিল ব্রিসবেন, অ্যাডিলেড ও পার্থ।

এবার এই তালিকায় ব্রিসবেন ২৭তম, অ্যাডিলেড ৩০তম ও পার্থের অবস্থান ৩২তম। এদিকে গত বছর নিউজিল্যান্ডের রাজধানী ওয়েলিংটন চতুর্থ স্থানে থাকলেও এবার শহরটি শীর্ষ দশে নেই।

এবার তালিকায় ইউরোপের আধিপত্য থাকলেও দুটি শহরের নাম তালিকায় দেখা যাচ্ছে না। একটি হলো যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন, অপরটি ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস। জীবনযাপনের ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় শহর দুটি এবার তালিকায় আসতে পারেনি। এর সঙ্গে যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়াকে বড় কারণ বলা হচ্ছে।

একনজরে দেখা যাক সবচেয়ে বসবাসযোগ্য ১০ শহরের তালিকা—

১) ভিয়েনা, অস্ট্রিয়া
২) কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক
৩) জুরিখ, সুইজারল্যান্ড
৪) ক্যালগেরি, কানাডা
৫) ভ্যাঙ্কুভার, কানাডা
৬) জেনেভা, সুইজারল্যান্ড
৭) ফ্রাঙ্কফুর্ট, জার্মানি
৮) টরন্টো, কানাডা
৯) আমস্টারডাম, নেদারল্যান্ডস
১০) ওসাকা, জাপান ও মেলবোর্ন, অস্ট্রেলিয়া (যৌথভাবে)