কানাডার ইমিগ্রেশনে ব্যাক লগ
জট কমাতে ট্টুডো সরকারের ফর্মূলা

দীন ইসলাম: ২৪ লাখ লোক কানাডিয়ান ইমিগ্রেশন ব্যাক লগের খরায় পড়েছে। এ
সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। ২০২১ সালের জুলাই মাসে ব্যাক লগ ছিল ১৪ লাখ
৪৭ হাজার ৪৭৪ টি আবেদন। গেল মাস পযন্ত এ সংখ্যা ২৪ লাখে গিয়ে ঠেকেছে।
গেল মাসে দুই লাখ ৫৭ হাজার ৪৯৯ জন ব্যাক লগের সাথে যুক্ত হয়েছে। দিন দিন
এ ব্যাকলগ বেড়েই চলেছে। তবে ব্যাক লগ কমাতে ফর্মূলা বাতলে দিয়েছেন কানাডার
ক্ষমতাসীন ট্টুডো সরকার। গঠন করেছেন টাষ্কফোর্স। এ টাষ্কফোর্সটি ব্যাকলগে থাকা
ইমিগ্রেশন আবেদন নিষ্পত্তি করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। এরই মধ্যে কানাডার
প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্টুডো টাষ্কফোর্স গঠনের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন। কানাডা
ইমিগ্রেশনের ব্যাক লগ কমাতে টাষ্কফোর্স গঠন সর্ম্পকে জানতে চাইলে টরন্টোতে
কর্মরত ইমিগ্রেশন কনসালট্যান্ট তানভীর নওয়াজ ভোরের আলোকে বলেন, ব্যাক লগ
কমাতে টাষ্কফোর্স গঠন যুগান্তকারি কাজ হয়েছে। করোনার কারনে কানাডার ইমিগ্রেশন
কিছুটা থেমে গিয়েছিল। এখন আবার পুরোদমে কাজ চলছে। আগামী এক বছরের
মধ্যে সব আবেদন নিষ্পত্তি হয়ে যাবে বলে আশা করা যায়। ইমিগ্রেশন, রিফিউজি
এবং সিটিজেনশীপ কানাডা থেকে পাওয়া সর্বশেষ পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, তিন লাখ
৯৪ হাজার ৬৬৪ জনের নাগরিকত্বের আবেদন পেন্ডিং হয়ে আছে। এছাড়া পাঁচ লাখ
২২ হাজার ৪৭ টি পার্মানেন্ট রেসিডেন্স, টেম্পোরারি রেসিডেন্স আবেদন ১৪ লাখ ৭১
হাজার ১৭৩ টি পেন্ডিং হয়ে আছে। তবে এক্সপ্রেস এন্ট্রি’র আবেদনগুলো দ্রুত নিষ্পত্তি
করা হচ্ছে। বর্তমানে এক্সপ্রেস এন্ট্রির পেন্ডিং আবেদনের সংখ্যা ৩১ হাজার ৬০৩ টি।
গেল এপ্রিলে এক্সপ্রেস এন্ট্রি’র আবেদন পেন্ডিং ছিল ৪০ হাজার ৮৮৯ জন। সংশ্লিষ্ট
সূত্রে জানা গেছে, টেম্পোরারি রেডিসডেন্স টু পার্মানেন্ট রেসিডেন্স (টিআর টু পিআর)
আবেদনগুলো সবচেয়ে বেশি দ্রুত নিষ্পত্তি করছে কানাডার ইমিগ্রেশন বিভাগ। এদিকে
পেরেন্টস স্পনসরশিপ, ফ্যামিলি ক্লাস স্পনসরশিপ, রেফিউজি ক্লেম, ওয়ার্ক পার্মিট 
এবং সিটিজেনশিপ এপ্লিকেশন নিষ্পত্তি হচ্ছে ধীর লয়ে। কানাডার  ইমিগ্রেশন মিনিস্টার
শন ফ্রেজার এবং কানাডার প্রধান মন্ত্রী জাস্টিন ট্র্রুডা তাই সম্প্রতি  নতুন ইমিগ্র্
যান্ট দ্রুত সময়ের মধ্যে আনার ঘোষণা দিয়েছেন।ইমিগ্রেশন মিনিস্টার শন ফ্রেজার ইমি
গ্রেশনের দীর্ঘসূত্রিতা কমানোর জন্যে ২০২১ সালের বাজেটে ৮৫ মিলিয়ন ডলার অর্থ 
বরাদ্দ করেছেন। ফলে ২০২২ সালের শেষ নাগাদ কানাডা ইমিগ্র্যাশন প্রক্রিয়ার স্বাভা
বিক গতি ফিরে পাবে বলে তিনি আশাবাদ বাক্ত করেছেন। প্রধান মন্ত্রী জাস্টিন ট্র্রু
ডোও তাঁর ২০২২ সালেরইমিগ্রেশন পরিকল্পনায়  এই দীর্ঘ সূত্রিতা কমানোর অঙ্গীকা
র ব্যাক্ত করেছেন। এরই অংশ হিসেবে টাষ্কফোর্স গঠন করা হয়েছে।