আমি আপনাদের মেয়ে, আপনাদের সেবা করে যেতে চাই- ডলি বেগম

দীন ইসলাম: আমি বাংলাদেশি কমিউনিটির মেয়ে। বাংলাদেশের মাটির গন্ধ আমার সারা শরীরে। আপনারাই আমার আত্মীয়-পরিজন, আত্মার আত্মীয়। যতদিন বেঁচে আছি ততদিন আপনাদের সেবা করে যেতে চাই। বিগত চার বছর যেভাবে আমাকে পাশে পেয়েছেন, আগামীতে একইভাবে আমাকে পাশে পাবেন। এমন কমিটম্যান্টের অন্যথা হবে না। আরেকবার আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করুন, আরেকবার সুযোগ দিন প্লিজ। ভোরের আলো’র সঙ্গে একান্ত আলাপ চারিতায় এসব কথাই জানালেন ওন্টারিও প্রভিন্সিয়াল নির্বাচনে স্কারবো সাউথওয়েস্ট থেকে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) এমপিপি প্রার্থী ডলি বেগম। গত চার বছর একই আসন থেকে তিনি এমপিপি পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। বাঙ্গালি কমিউনিটিতে আপনাকে নিয়ে অনৈক্যের কথা শোনা যায়? এটাকে কিভাবে ব্যাখ্যা করবেন আপনি? এমন প্রশ্নে ডলি বেগম বলেন, বাংলাদেশ ভাই-বোনরা আমার হৃদয়ের মনিকোঠায় রয়েছে। বাংলাদেশি কমিউনিটির কারও দুঃখের কথা শুনলে আমার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। ঠিক থাকতে পারি না। প্রাণপনে ঝাঁপিয়ে পড়ার চেষ্টা করি। কতটুকু করতে পারি তাঁর একান্ত বিচার করবেন আপনারা। গেল চার বছর দায়িত্ব পালনে আপনার ব্যর্থতা বা সফলতা কতটুকু ছিল? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রথমবার নির্বাচিত হয়ে চার বছর সুন্দরভাবে দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করেছি। প্রভিন্সিয়াল পার্লামেন্টে বাঙ্গালি কমিউনিটির কথা তুলে ধরতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। একজন নতুন এমপিপি হয়েও পার্লামেন্টে সরব ছিলাম। আমার শক্তি, বাঙ্গালি কমিউনিটির মুরব্বিদের দোয়া, মা-বোনদের ভালবাসা এবং বিভিন্ন বয়সীদের সাপোর্ট। বাঙ্গালি কমিউনিটির সবার সহায়তার কারনেই আমি একজন ডলি বেগম হতে পেরেছি। আমার রাজনীতিতে এতটুকু আসার পেছনে পুরোপুরি আপনাদের অবদান। এটা আমি মনেপ্রাণে সব সময় বিশ্বাস করি। এবার এমপিপি নির্বাচিত হলে বাঙ্গালি কমিউনিটির জন্য কি কি করবেন? এমন প্রশ্নে কিছুটা চিন্তা করে ডলি বেগম বলেন, অন্যান্য কমিউনিটির সাথে পাল্লা দিয়ে আমাদেরও এগিয়ে যেতে হবে। আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি আমরাও পারবো। আমাদের পারতে হবে। আমি বাঙ্গালি কমিউনিটির জন্য কিছু প্রায়োরিটি নির্ধারণ করেছি। নির্বাচিত হলে ওই সব প্রায়োরিটি বাস্তবায়নে সচেষ্ট থাকবো। আপনি ভাল চাকুরি করতেন। চাকুরি ছেড়ে পলিটিক্সে কেন আসলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে ডলি বেগম বলেন, রাজনীতিতে ভাবনা থেকে আসিনি। বলতে গেলে কাজের সূত্রেই প্রথম নির্বাচনে এসেছিলাম। চার বছর আগে নতুন প্রা্র্থী হিসেবে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি আমাকে আস্থায় নিয়েছিল। এটা এখনও অব্যাহত আছে। আস্থাটাকে পুঁজি করে সামনে অনেক দূর এগিয়ে যেতে চাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। মনে রাখবেন, আমার বিজয় হলে সেটা মনে করবেন আপনাদেরই বিজয়।