অবশেষে দেশে ফিরলেন মুরাদ

কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবেশে ব্যর্থ হয়ে অবশেষে দেশে ফিরেছেন ডা. মুরাদ হাসান। রোববার সন্ধ্যায় এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তিনি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।
সারা বিশ্বে বিমান চলাচল পর্যবেক্ষণকারী ‘ফ্লাইটস্টারস’-এর ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, দুবাই বিমানবন্দর থেকে রোববার সকাল ১০টা ৪৬ মিনিটে এমিরেটস এয়ারলাইনসের ইকে ৫৮৬ ফ্লাইটটি ঢাকার উদ্দেশে উড্ডয়ন করে। দুবাই থেকে ৪ ঘণ্টা ২১ মিনিটের যাত্রা শেষে এটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। অবতরণের নির্ধারিত সময় ছিল বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিট।
মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগের পর গত বৃহস্পতিবার কানাডার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়েন মুরাদ হাসান। কিন্তু টরন্টোর পিয়ারসন এয়ারপোর্টে নামতেই দেখেন ভিন্ন পরিস্থিতি। স্থানীয় সময় শুক্রবার দুপুর একটা ৪১ মিনিটে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটি এয়ারপোর্টে অবতরণ করে। এরপরই ডা. মুরাদ হাসানকে কানাডা ইমিগ্রেশন এবং বর্ডার সার্ভিস এজেন্সির কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যান।দীর্ঘ সময় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপরই তাকে তুলে দেয়া হয় দুবাইগামী ফিরতি ফ্লাইটে। কিন্তু সেখানকারও ভিসা না পেয়ে অবশেষে তিনি নিজ দেশেই ফিরে আসলেন।
এর আগে শনিবার রাতেই মুরাদ হাসান দেশে ফিরবেন বলে গুঞ্জন শোনা যায়। তবে রাতে না আসায় সকালে তিনি আসতে পারেন বলে ধারণা করা হয়।
মুরাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন জমা পড়েছে ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীর সাইবার ট্রাইব্যুনালে। জাইমা রহমানকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে এ আবেদন করা হয়েছে।