এশিয়ান সায়েন্টিস্ট ১০০ তালিকায় তিন বাংলাদেশি, অনুভূতি জানালেন অধ্যাপক সামিয়া

সিঙ্গাপুর থেকে ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক ম্যাগাজিন এশিয়ান সায়েন্টিস্ট। তিনজন বাংলাদেশী গবেষক এবার ‘এশিয়ান সায়েন্টিস্ট ১০০’ তালিকায় স্থান পেয়েছেন। তারা হলেন- ড. ফেরদৌসী কাদরি, ড. সামিয়া সাবরিনা এবং ডা. সালমা সুলতানা।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি) এর সংক্রামক ব্যাধি বিভাগের সিনিয়র বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরি। ড. সামিয়া সাবরিনা হলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক। আর ডা. সালমা সুলতানা হলেন বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি প্রাণি চিকিৎসা কেন্দ্র ‘মডেল লাইভস্টক ইনস্টিটিউটের’ প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক।

এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে অধ্যাপক সামিয়া মানবজমিনকে বলেন, “যেকোন স্বীকৃতি পেলে স্বাভাবিকভাবেই ভালো লাগে। আর আমরা যেহেতু গবেষণার দিক থেকে তুলনামূলকভাবে পিছিয়ে আছি, সেক্ষেত্রে এমন স্বীকৃতি অনুপ্রেরণা জোগায়।”

বাংলাদেশ থেকে ম্যাগাজিনটিতে স্থান পাওয়া তিনজনই হলেন নারী। এ বিষয়ে তিনি বলেন, “গবেষণায় আমরা এমনিতেই পিছিয়ে। নারীরাতো আরো বেশি।

বিশ্বাস করি, নারীরা পরিশ্রম করলে এমন অনেক স্বীকৃতি অর্জন করতে পারবেন।”

ম্যাগাজিনটির ভাষায়ঃ

২০১৬ সাল থেকে প্রতি বছর এশিয়ান সায়েন্টিস্ট ম্যাগাজিন এশিয়ার সবচেয়ে অসামান্য গবেষকদের তালিকা তৈরি করে আসছে।

এবার এর ষষ্ঠ সংস্করণে, এশিয়ান সায়েন্টিস্ট ১০০ তালিকায় এই অঞ্চলের সেরা এবং উজ্জ্বল ব্যক্তিদের সাফল্য উদযাপন করছে, বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় তাদের সাফল্য তুলে ধরছে।

এই তালিকায় স্থান করে নিতে সম্মানিত ব্যক্তিকে স্বীয় গবেষণার জন্য পূর্ববর্তী বছরে কোন জাতীয় বা আন্তর্জাতিক পুরষ্কার পেতে হয়। বিকল্পভাবে, তার কোন গুরুত্বপূর্ণ বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার থাকতে হয় অথবা এজাতীয় কোন গবেষণা কাজে নেতৃত্ব প্রদান করতে হয়।
উৎসঃ   mzamin