তামিলনাড়ুর গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটি থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি পেলেন মমতাজ

ডক্টরেট ডিগ্রি পেলেন সংগীতশিল্পী মমতাজ

সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি উপাধি পেলেন সংগীতশিল্পী মমতাজ বেগম।

শনিবার (১০ এপ্রিল) ভারতের তামিলনাড়ুর গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটি এ সম্মাননা দিয়েছে তাকে।

সংগীতশিল্পী মমতাজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

ফেসবুক স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হলো

“ভারতের তামিলনাড়ুর “গ্লোবাল হিউম্যান পিস ইউনিভার্সিটি” গত শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ বাংলাদেশের মমতাজ বেগমকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রী প্রদান করে। সারা পৃথিবীতে একমাত্র সঙ্গীত শিল্পী হিসেবে প্রকাশিত আট শতাধিক অ্যালবামের বিশ্ব রেকর্ড, সুদীর্ঘ ত্রিশ বছর যাবত বাংলা গানকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা, লোকজ সঙ্গীতকে আধুনিকায়ন করে সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য করা, চলচ্চিত্র সঙ্গীতে একাধিকবার জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্তি তথা দেশী বিদেশী অসংখ্য সম্মাননা অর্জন, সমাজ সচেতনতামূলক নানামুখী গানের মাধ্যমে বিশেষ ভূমিকাসহ সার্বিক মূল্যায়নে মমতাজ বেগমকে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডঃ পি ম্যানুয়েল সম্মানসূচক ‘ডক্টর অব মিউজিক’ পদকে ভূষিত করেন।”

জানা যায়, একই সময়ে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেছেন চেন্নাইয়ের সাবেক জেলা জজ থিরু এজে মুরুগানানথাম, তামিলনাড়ুর আধ্যাত্মিক ধর্মগুরু খলিফা মাস্তান সাহেব ক্বাদিরী, কেরালা ড. এপিজে আবুল কালাম ইনস্টিটিউট অব বিজনেস ম্যানেজমেন্ট পরিচালক উইলাত কোরাইয়া।

মমতাজ বেগমের জন্ম ১৯৭৪ সালের ৫ মে। সংসারে অভাব থাকায় শৈশবে বাউল গান গাইতেন মমতাজ। এরপর পালাগান, জারিগানসহ বহু গান গেয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলে জনপ্রিয় হয়েছেন তিনি।

২০০০ সালে হানিফ সংকেতের ‘ইত্যাদি’-তে ‘রিটার্ন টিকিট হাতে লইয়া আইসাছি এ দুনিয়ায়’ গান গেয়ে পৌছে যান বাংলার গণমানুষের কাছে।

বর্তমানে তিনি আওয়ামী লীগের একজন সক্রিয় রাজনীতিবিদ। নির্বাচিত সংসদ সদস্যও।