টরন্টো শহীদ মিনার নির্মান কমিটি থেকে অভিযুক্ত লুটেরাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত

১২ ফেব্রুয়ারী ২০২১, শুক্রবার রাত ৮টায় মাহবুব চৌধুরী রনি’র সঞ্চলানায়- অন্টারিও শহীদ মিনার নির্মান কমিটি আইএমএলডি’র সাথে দু’জন অভিযুক্ত চিহ্নিত লুটেরাকে বহিষ্কারের বিষয় নিয়ে টরন্টোর সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের এক ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে আইএমএলডি, বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ আলোচনায় অংশগ্রহন করেন। সভায় আইএমএলডি’র পক্ষ থেকে শহীদ মিনার নির্মানের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। আজকের ভার্চ্যুয়াল সভার প্রধান আলোচ্য বিষয় ছিল, টরন্টো শহীদ মিনার নির্মান কমিটি থেকে অভিযুক্ত অর্থপাচারকারীদের বহিষ্কার প্রসঙ্গ। সভায় সকল বক্তাই শহীদ মিনার নির্মানের কমিটি থেকে চিহ্নিত অভিযুক্ত ও বিতর্কিত ব্যক্তিদের বহিষ্কারের বিষয়ে নীতিগতভাবে একমত পোষন করেন। বক্তারা বলেন, শহীদদের স্মরণে নির্মিত শহীদ মিনারের চেতনা-মর্যাদাকে অম্লান রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়। শহীদ মিনার নির্মান প্রক্রিয়ার সাথে কোন বিতর্কিত ব্যক্তিকে রাখার সুযোগ নেই। শহীদের আত্মদান স্মরণে নির্মিত মিনার কোনভাবেই কলঙ্কিত ও অপবিত্র হতে দেয়া যাবে না। উল্লেখ গত কিছুদিন ধরে টরন্টোর সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে শহীদ মিনার নির্মান কমিটি থেকে বাংলাদেশের ব্যাংকের থেকে অর্থ আত্বসাৎ ও অর্থপাচারকারীদের বহিষ্কারের দাবী জানিয়ে আসছিলেন। তার অংশ হিসেবেই শহীদ মিনার নির্মান কমিটির সাথে আজকের বৈঠকে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অংশগ্রহনকারী সকলের সম্মতিতে নিম্নলিখিত সিদ্ধান্তসমুহ গ্রহন করা হয়। আগামী ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে আইএমএলডি’র কমিটি থেকে অভিযুক্ত অর্থপাচারকারী বিতর্কিত ব্যক্তিদের কমিটি থেকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত হয় এবং কানাডাতে দূর্ণীতিবাজ লুটেরাদের সামাজিকভাবে বর্জনের ঘোষণা দেয়া হয়। আগামীতে টরন্টোতে শহীদ দিবস উদযাপনের লক্ষ্যে একটি সার্বজনীন গ্রহনযোগ্য উদযাপন কমিটি করার বিষয়ে সবাই একমত পোষন করেন। এবং বর্তমান কমিটি শহীদ মিনার সিটি অফিসকে হস্তান্তরের মাধ্যমে বিলুপ্ত হবার কথাও জানানো হয়। সভায় শহীদ মিনার নির্মান কমিটি আইএমএলডি’র পক্ষে আলোচনা করেন, ব্যারিস্টার চয়নিকা দত্ত, ম্যাক আজাদ, ফায়েজুল করিম, মনির ইসলাম, সুমন সাইয়ীদ, নজরুল মিন্টু, শহিদুল ইসলাম মিন্টু, সামসুল আলম, কফিলউদ্দিন পারভেজ, শক্তি দেব, রাসেল রহমান, মির্জা, সবিতা সোমানী, আবদুল গাফফার, আহাদ খন্দকার, ফরিদা হক, রোমেলা বেগম, সাইদুন ফয়সাল, সাকের মোস্তফা চৌধুরী।এবং প্রবাসী বাঙালি কমিউনিটি ও সামাজিক, সংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, ব্যারিস্টার আলমগীর হোসাইন, আহমেদ হোসেন, ডঃ মঞ্জুরে খোদা, মাসুক মিয়া, রেজা অনিরুদ্ধ, আজফর সাঈদ ফেরদৌস, ইমরুল ইসলাম, জাকির খান, মাসুদ আলী লিটন, সাদ চৌধুরী, সৈকত রুশদী, আনম ইউসুফ, আসাদ নিশু, এরিন কবির, রাজিবুর রহমান, নওশের আলী, মোহাম্মাদ বাশার, রুহুল চৌধুরী, রোকেয়া পারভিন, আরিফ আহমেদ, জাকারিয়া চৌধুরী, এম এইচ মামুন, মুনির রশিদ, সোলায়মান তালুত রবিন, ইলিয়াছ খান, লিটলী রায়, মামুনুর রশীদ, সুমন সিদ্দিক, ফাইজুল চৌধুরী, ইনতিকাব চৌধুরী তুহিন, ডঃ সুরভি সাঈদ, বাবলু চৌধুরী, দেলোয়ার এলাহি, নাহিদ কবীর কাকলী, রিফাত নওরীন, আরিফ আহমেদ, জাকারিয়া রশিদ চৌধুরী, মিলাদ চৌধুরী, আতিউর রহমান, হাসমত আরা চৌধুরী জুঁই, সৈয়দ মাহবুব, প্রমুখ। ধন্যবাদসহটরন্টোর সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠন।সংবাদ বিজ্ঞপ্তি