‘কোলশিসিন’ ড্রাগের ট্রায়ালে অভুতপূর্ব সাফল্য

লিখেছেন ডঃ মোহম্মদ মাহবুব চৌধুরী, মন্ট্রিয়াল, কানাডা থেকে

মন্ট্রিয়াল হার্ট ইন্সটিটিউট গতকাল কোভিড-১৯ ড্রাগ ‘কোলশিসিন’এর উপর পরিচালিত ‘কলকরোনা’ ট্রায়ালের ফলাফল প্রকাশ করে বলেছে যে কোভিড-১৯ রোগীর প্রাথমিক অবস্থায় কোলশিসিন ড্রাগের প্রয়োগে রোগীর মারাত্মক ইনফ্লেমেশন জনিত হসপিটাল গমন, ভেন্টিলেটরের ব্যবহারসহ মৃত্যুর হার উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পায়।

৪১৫৯ জন কোভিড-১৯ রোগীর উপর পরিচালিত এই ট্রায়ালে দেখা যায় ‘কোলশিসিন’ ড্রাগ প্রয়োগে

-হসপিটাল গমন হ্রাস: ২৫%
-ভেন্টিলেশনের ব্যবহার হ্রাস: ৫০%
-মৃত্যুর সংখ্যা হ্রাস: ৪৪%

‘কোলশিসিন’ ড্রাগটি সম্ভবত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং ইমিউনোমডুলেটরি মেকানিজমে কোভিড রোগীর ফুসফুসে মারাত্মক ইনফ্লেমেশন সৃষ্টিকারি সাইটোকিন স্টর্মকে প্রতিহত করতে পারে। যার ফলে হসপিটাল যাবার বা ভেন্টিলেটর ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেতে পারে।

নোট:

-মন্ট্রিয়াল হার্ট ইন্সটিটিউট কানাডা তথা উত্তর আমেরিকার একটি স্বনামধন্য গবেষনা প্রতিষ্ঠান। তাদের প্রকাশিত ফলাফলের পূর্নাংগ অ্যাকাডেমিক রিভিউ অচীরেই হাতে আসছে। যুক্তরাজ্যের ‘রিকভারি’ ট্রায়ালেও এই ড্রাগটি ব্যবহার করা হচ্ছে। যদি একাডেমিক রিভিউ কিংবা যুক্তরাজ্যের রিকভারি ট্রায়ালেও একই ধরনের ফলাফল পাওয়া যায় তবে নি:সন্দেহে ‘কোলশিসিন’ ড্রাগটি ওরাল ড্রাগ হিসেবে কোভিড-১৯ চিকিৎসার একটা যুগান্তকারী ড্রাগ হিসেবে বিবেচিত হবে।

-‘কোলশিসিন’ একটা সস্তা পিল যা গেঁটেবাতের চিকিৎসায় দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ড্রাগটি বাজারে সহজেই পাওয়া যায় এবং ট্যাবলেটের মত করে খাওয়া যায়। পিলটির ব্যবহারে সামান্য এসিডিটি বা ডায়রিয়া ছাড়া বিশেষ কোন সাইড ইফেক্টও নেই। কিন্তু কোভিড-১৯ চিকিৎসায় চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতিত কোনভাবেই ড্রাগটি গ্রহন করা যাবেনা।

এমন আরো সংবাদ

একটি উত্তর দিন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

সর্বশেষ বিনোদন