ফাইজারের টিকার কারিগর তুর্কি-জার্মান বিজ্ঞানী দম্পতি

রাশিদুল ইসলাম :  মানুষের প্রতি ভালবাসা ও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে গত দুই দশক ধরে নিরন্তর গবেষণা চালিয়ে গেছেন অঙ্কোলজির গবেষক ডক্টর উগার সাহিন (৫৫) এবং তার স্ত্রী ওজলেম তুরেসি (৫৩) মধ্যে। জার্মান বায়োটেকনোলজি কোম্পানি বায়োএনটেকের প্রতিষ্ঠাতা উগার সাহিন। এই গবেষক দম্পতি তৈরি করেছেন করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক আরএনএ ভ্যাকসিন।

২০০৮ সালে সংক্রামক ও জটিল রোগের থেরাপি নিয়ে গবেষণায় জার্মান রিসার্চ সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেন এই দম্পতি। গত ফেব্রুয়ারিতে সার্স-কভ-২ ভাইরাস নিয়ে গবেষণা শুরু করেন তারা।

ক্যান্সার গবেষণার মাঝেই তাদের মধ্যে জমে ওঠে প্রেমি। তুর্কি উগার জার্মানির কোলন ইউনিভার্সিটিতে মেডিক্যাল সায়েন্সে পড়াশোনা করতেন। ওজলেমের পরিবারও তুরস্ক থেকে এসেছিলেন জার্মানিতে। তারা এইচআইভি, টিউবারকিউলোসিস ও অন্যান্য রোগের প্রতিষেধক নিয়েও গবেষণা করেন।

এক বছর আগে বায়োএনটেকের বাজারমূল্য ৪৬০ কোটি ডলার থেকে কোভিড টিকা আবিস্কারের পর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬’শ কোটি ডলারে। জার্মানির প্রথম ১’শ ধনী ব্যক্তির তালিকায় তারা জায়গা করে নিয়েছেন। গত বছরই বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এইচআইভি ও টিউবারকিউলোসিসের গবেষণার জন্য প্রায় ৫ কোটি ডলার অনুদান দেয় বায়োএনটেককে।

 

উগার বলেন বিশ^মানবতার কাছে এই বার্তা পৌছে দিতে পেরেছি কোভিড থেকে রক্ষা করবে ভ্যাকসিন। তাদের এ আবিস্কারকে গত ১’শ বছরের সেরা বলছে ফাইজারের সিইও আলবার্ট বোরলা।

২০১৬ সালে এই দম্পতির প্রতিষ্ঠিত আরেক কোম্পানি গ্যানিমেড ক্যান্সার প্রতিষেধক এ্যান্টিবডি বিক্রি করে আয় করে ১.৪ বিলিয়ন ডলার।