নীড়মন্ট্রিয়লআকবরকে ধরে আনায় ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন রহিম

আকবরকে ধরে আনায় ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন রহিম

সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান আহমদ হত্যার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত পুলিশের বহিস্কৃত উপ পরিদর্শক (এসআই) আকবর হোসেন ভূইয়াকে ধরে আনায় ৫০ হাজার টাকা পুরষ্কার পাচ্ছেন সিলেটের কানাইঘাটের রহিম উদ্দিন।

রহিম উদ্দিনকে এ পুরষ্কার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন গোলাপগঞ্জের শরীফগঞ্জ ইউনিয়নের কানাডার মন্ট্রিয়ল প্রবাসী মো. জয়নাল আবেদীন জামিল।

সোমবার মধ্যরাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক পেজে লাইভে এসে এ ঘোষণা দেন মো. জয়নাল আবেদীন। ফ

মো. জয়নাল আবেদীন বিশ্ব প্রবাসী শরীফগঞ্জ উন্নয়ন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক।

সিলেটের আলোচিত রায়হান হত্যার প্রধান অভিযুক্ত সাময়িক বরখাস্তকৃত এসআই আকবর হোসেনকে কানাইঘাটের ডনা সীমান্ত এলাকা থেকে আকবরকে আটক করে স্থানীয়রা। সীমান্ত এলাকা থেকে তাকে ধরে নিয়ে আসেন রহিম উদ্দিন।

আব্দুর রহিম উদ্দিন লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউপির ডোনা সীমান্ত এলাকার মৃত তরফ আলীর পুত্র। আকবরকে খাসিয়াদের কাছ থেকে নিয়ে এসে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন তিনি।

সিলেট নগরীর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে আখালিয়া এলাকার রায়হান আহমদের মৃত্যুর এক মাসের মাথায় গ্রেপ্তার করা হল মূল অভিযুক্ত ওই ফাঁড়ির সাবেক ইনচার্জ আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ অক্টোবর ভোরে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ (৩৪)। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। রায়হান সিলেট নগরীর আখালিয়ার নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি নগরীর রিকাবিবাজার স্টেডিয়াম মার্কেটে এক চিকিৎসকের চেম্বারে কাজ করতেন।

এ ঘটনায় ১২ অক্টোবর রাতে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হেফাজতে মৃত্যু আইনে সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন রায়হানের স্ত্রী। স্ত্রীর দায়ের করা মামলাটির তদন্ত করছে পিবিআই। এ ঘটনার পর পরই পালিয়ে যান আকবর হোসেন।

সর্বশেষ খবর

মাসিক আর্কাইভ