পরকীয়ার জেরেই বন্দুক হামলার শিকার হন ফরাসি যাজক

সম্প্রতি ফ্রান্সের তিনটি শহরে পরপর ছুরি ও বন্দুক হামলা হয়। দুটি ছুরি হামলায় এক শিক্ষক ও এক নারীসহ মোট চারজন নিহত হন। এরই মাঝে ৩১ অক্টোবর শনিবার লিয়ন শহরে গ্রিক অর্থোডক্স গির্জার সামনে এক যাজক গুলিবিদ্ধ হন। সন্দেহভাজন কয়েকজনকে গ্রেফতারের পর তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পেরেছে, ওই যাজক পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। যার জেরেই তাকে খুব কাছ থেকে বুকে গুলি করে চম্পট দেয় নিকোলাস কাকাভেলাকিস নামে এক বন্দুকবাজ।

ধৃতদের মধ্যে একজন আদালতকে জানিয়েছে, তার স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া বা বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন ওই যাজক। অবৈধ ত্রিকোণ সম্পর্কের জেরেই নিকোলাস নামে ওই যুবক ৫২ বছর বয়সি যাজককে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করেছিল। গুলিবিদ্ধ ও রক্তাক্ত অবস্থায় যাজককে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কয়েকদিন কোমায় থাকার পর এখন তার জ্ঞান ফিরেছে।

কিন্তু এর আগে ধারনা করা হচ্ছিল পরপর দুটি ছুরি হামলার মাঝে যাজকের ওপর প্রাণঘাতী বন্দুকবাজি হামলার সঙ্গেও বোধহয় কোনো মুসলিম জড়িত। এতদিনে বোঝা গেল কোনো মুসলিম বা সন্ত্রাসী হামলা নয়, যাজক গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন অন্যের স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার কারণে।