ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভ: বাংলাদেশি অভিবাসীদের নিষিদ্ধের দাবি ফ্রান্সের বিরোধী নেতার

নবী মুহাম্মদ (সা.) এর আপত্তিকর কার্টুন প্রকাশের প্রতিক্রিয়ায় ফ্রান্সবিরোধী বিভিন্ন কর্মসূচির প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানের অভিবাসীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন ফ্রান্সের বিরোধী দলের নেতা মেরিন লে পেন।

শুক্রবার টুইটার আইডিতে মেরিন লেখেন, ‘বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানে নতুন অতি-সহিংস বিক্ষোভের এই প্রেক্ষাপটে (বিক্ষোভকারীরা আমাদের রাষ্ট্রদূতের শিরশ্ছেদ করতে চেয়েছে) দেশগুলো থেকে অভিবাসী নেয়ার ওপর আমি নিষেধাজ্ঞা জারির আহ্বান জানাই।’

বিরোধীদলীয় নেতার এমন টুইটের পরিপ্রেক্ষিতে ফ্রান্স সরকার অবশ্য এ বিষয়ে এখনো কিছু বলেনি। তবে দেশটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। অভিবাসীদের ওপর বাড়ানো হয়েছে নজরদারি।

সম্প্রতি ফ্রান্সে স্যামুয়েল প্যাটি নামের এক ইতিহাস শিক্ষক ক্লাসে বাকস্বাধীনতা বিষয়ে পাঠদানের সময় নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর কার্টুন দেখান। যার জেরে গত ১৬ অক্টোবর চেচেন বংশোদ্ভূত এক ব্যক্তি ছুরি হাতে ওই শিক্ষককে আক্রমণ করে এবং তার শিরশ্ছেদ করে।

এই ঘটনায় ফ্রান্সজুড়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া হয়। পাশাপাশি ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁর একাধিক বক্তব্যে মুসলিমদের সমালোচনা উঠে আসে। ফ্রান্স এমন ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন বন্ধ করবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। তার এ মন্তব্যের জেরে মধ্যপ্রাচ্যসহ সারা বিশ্বে দেশটির পণ্য বয়কটের ডাক ওঠে। বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চলে হয়েছে প্রতিবাদ মিছিল।