করোনায় আক্রান্ত ১৫ মন্ত্রী-এমপি

ভোরের আলো রিপোর্টমহামারি করোনাভাইরাসে পর্যন্ত দেশের ১৫ জন মন্ত্রীএমপি আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজন মারা গেছেন। এদিকেশনিবার (২০ জুন) নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন নড়াইল আসনের সংসদ সদস্য এবং জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেকঅধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। এছাড়া বেশ কয়েকজন সাবেক মন্ত্রীএমপি তাদের পরিবারের সদস্যরা করোনায় আক্রান্তহয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেনমুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক তার স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানু , বাণিজ্যমন্ত্রীটিপু মুনশি, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

তাদের মধ্যে শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ মারা গেছেন। তিনি টেকনোক্র্যাট কোটায় মন্ত্রী ছিলেন। সাবেক মন্ত্রী সিরাজগঞ্জ থেকেনির্বাচিত আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম করোনা আক্রান্তের পর ব্রেন স্ট্রোক করে মারা যান।

গত দিন আগে থেকেই জ্বরে আক্রান্ত মাশরাফি বিন মর্তুজা। সেই সঙ্গে ছিল শরীর ব্যথা। পরে করোনা পরীক্ষার জন্য গতবৃহস্পতিবার (১৮ জুন) নমুনা দেন তিনি। শুক্রবার মাশরাফির করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। বর্তমানে ঢাকারবাসায় আইসোলেশনে আছেন তিনি।

এর আগে শুক্রবার সাবেক মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেয়াই ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন করোনাভাইরাসেআক্রান্ত হন। বর্তমানে তিনি জাতীয় সংসদে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমটিরদায়িত্ব পালন করছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলের শ্বশুর। ফরদিপুর আসনেরসংসদ সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসনের বাসার স্টাফ অন্যান্যদের করোনার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে আগেই জানাগেছে।

এছাড়া সাবেক হুইপ নওগাঁ আসনের সাংসদ শহিদুজ্জামান সরকার, রেল মন্ত্রণালয় বিষয়ক কমিটির সভাপতি বি এমফজলে করিম চৌধুরী, যশোর আসনের সংসদ সদস্য রণজিত কুমার রায়, চট্টগ্রাম আসনের সংসদ সদস্য মোসলেম উদ্দিনসপরিবারে, জামালপুর আসনের এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল, চট্টগ্রাম১৬ আসনের এমপি মো. মোস্তাফিজুর রহমানসপরিবারে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসনের মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল, উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ গণফোরামের এমপিমোকাব্বির খান করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়া জাতীয় সংসদের ৯৪ জন কর্মকর্তাকর্মচারী করোনায়আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে রয়েছেন।

এদিকে পরিবারের সদস্যদের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসার পর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুলহাসান চৌধুরী নওফেল, বাগেরহাট আসনের এমপি শেখ হেলাল উদ্দীন, এমপি শেখ তন্ময়, যশোর আসনের আওয়ামীলীগের কাজী নাবিল আহমেদ, রাজবাড়ী আসনের কাজী কেরামত আলী টাঙ্গাইল আসনের আহসানুল ইসলাম টিটুসহপ্রায় ৪০ জন মন্ত্রীএমপিকে সংসদ অধিবেশনে না আসার অনুরোধ জানানো হয়েছে। তাদের পরিবার, গাড়ির চালক বা ঘনিষ্ঠকেউ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় এবং স্বাস্থ্যগত কারণে সংসদের চলতি বাজেট অধিবেশনে না আসার জন্য বলা হয়েছে।