‘যেভাবে ত্রাণ দিয়েছি সেভাবেই দেবো, কাউকে তোয়াক্কা করি না’

ভোরের আলো ডেস্ক:

অসহায়-দুস্থদের বাড়িতে নিয়ে এসে জটলা করে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) নারী কাউন্সিলর (সংরিক্ষত আসন-২) মোসা. আয়েশা খাতুন নাদিরা। সেখানে ছিল না কোনো সামাজিক দূরত্ব। ফলে স্থানীয় সচেতন লোকজন এই কাউন্সিলরের কঠোর সমালোচনা করেছেন। এটিকে ত্রাণ বিতরণ না বলে তারা ‘করোনাভাইরাস বিতরণ করা হচ্ছে’ বলে আশঙ্কা করেছেন।

মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী মহানগরীর ভাটাপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে ৩০০ জন নারী-পুরুষকে খবর দিয়ে ডেকে আনেন মোসা. আয়েশা খাতুন নাদিরা। পরে জটলা করে ত্রাণ বিতরণ করেন। সেখানে ত্রাণ নিতে আসা মানুষের উদ্দেশ্যে দীর্ঘক্ষণ বক্তব্যও দেন কাউন্সিলর নাদিরা।

 

কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন নাদিরা সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘যেভাবে ত্রাণ দিয়েছি, আগামীতেও সেভাবে দেবো। আমি কাউকে তোয়াক্কা করি না। আপনারা আমার বিরুদ্ধে যা পারেন লিখেন।’

৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নুরুজ্জামান টুকু সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘উনি (নাদিরা) সিটি করপোরেশনের একজন কাউন্সিলর। তিনি সরকারি সব ধরনের নিয়ম-কানুন জানেন। সব জেনেও যদি এরকম করেন তাহলে সেটা দুঃখজনক।’ তার নিজ বাড়ির সামনে হওয়ায় তিনি নিজেও এটা দেখেছেন বলে জানান টুকু।

জটলা করে ত্রাণ বিতরণ করায় রাজশাহী নগরীর অনেক সচেতন নাগরিক চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। অনেকেই বলেছেন, রাসিকের একজন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর মানে তিনি ৩টা ওয়ার্ডের দায়িত্বে রয়েছেন।করোনাভাইরাস সম্পর্কে তার ন্যূনতম কোনো ধারণা নেই। যদি থাকতো তাহলে এভাবে জটলা করে শত শত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করতেন না।

রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদত খান বলেন, ‘কাউন্সিলরের ত্রাণ বিতরণ বিষয়ে থানা পুলিশকে অবগত করা হয়নি। বিধায় আমিও বিষয়টি জানি না। তবে জনসমাগম কোনোভাবেই করা যাবে না। একজন কাউন্সিলর তাদের না জানিয়ে এভাবে ত্রাণ প্রদান করবেন, সেটা কীভাবে সম্ভব!’ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন বলে জানান ওসি।

(ভোরের আলো/ফআ)