রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় নাগামরিচ

ঝাল খেতে যারা ভীষণ পছন্দ করেন তাদের জন্য বোম্বাই মরিচ বা নাগা মরিচ হলো অন্যতম পছন্দের একটি খাদ্য উপাদান। স্বাভাবিক অবস্থায় বিশ/পঁচিশ টাকা হালি বিক্রি হয় এমনকি ত্রিশ থেকে চল্লিশ টাকাও হয়ে যায় সময় বিশেষে। অঢেল সরবরাহ আর লক-ডাউনের কারণে চাহিদা কমে যাওয়ায় প্রতি হালির দাম ১৫, ১০ হয়ে ৫ টাকায় এসে ঠেকেছে। বহুল পরিচিত ও খাদ্যটির প্রতিদিন খাওয়া হলেও এর উপকারিতা সম্পর্কে সঠিকভাবে ক’জন জানেন? আসুন জেনে নেই নাগামরিচের এতো গুণাগুণ।

ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে
বোম্বাই মরিচে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা শরীরে ‘দ্বাররক্ষী’ হিসেবে কাজ করে থাকে।

রুচি বাড়াতে সাহায্য করে
বোম্বাই মরিচ মুখে তেঁতো ভাব দূর করতে এবং মুখে রুচি বাড়াতে দারুণ কাজ করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে
বোম্বাই মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে দারুণভাবে কাজ করে।

ত্বকের জন্য দারুণ উপকারী
বোম্বাই মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-ই। যা ত্বকের প্রাকৃতিক তেল উৎপন্ন করতে সাহায্য করে থাকে বলে ত্বক অনেক সুস্থ থাকে।

জিরো ক্যালোরি
খুবই মজার ব্যাপার হচ্ছে, বোম্বাই মরিচে কোন ক্যালোরি নেই। আরও দারুণ তথ্য হলো, বোম্বাই মরিচ খাওয়ার পরে শরীরের মেটাবোলিজম প্রায় ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যায়!

রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে
যাদের ডায়াবেটিসের সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য বোম্বাই মরিচ একটি উৎকৃষ্ট খাদ্য হতে পারে।

খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে
বোম্বাই মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দিলে, সেক্ষেত্রে বোম্বাই মরিচ খেলে ভালো ফলাফল পাওয়া সম্ভব হয়। এছাড়াও, সাধারণ সময়ে খাদ্য দ্রুত পরিপাক করতে সাহায্য করে।

বোম্বাই মরিচ খাওয়া মানে মনমেজাজ ভালো
ঝাল কোন খাবার বিশেষ করে বোম্বাই মরিচ খাওয়ার ফলে মস্তিষ্ক থেকে ‘এন্ডরফিনস’ নিঃসৃত হয়, যা মনমেজাজ ভালো ও চাঙ্গা রাখতে সাহায্য করে থাকে।

ত্বকের ইনফেকশনের সমস্যায় কাজ করে থাকে
বোম্বাই মরিচে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকার ফলে, শরীরের যেকোনো অংশে ত্বকের ইনফেকশন হওয়া থেকে এটি প্রতিরোধ করে থাকে।

আয়রনপূর্ণ বোম্বাই মরিচ
যাদের শরীরে আয়রনের ঘাটতি রয়েছে তাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় বেশী করে বোম্বাই মরিচ যোগ করা জরুরি।

চোখের জন্য দারুণ উপকারী
ভিটামিন-সি এর পাশাপাশি বোম্বাই মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বেটা-ক্যারোটিন। যা সুস্থ চোখের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়।

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় শুধুমাত্র স্বাদ বৃদ্ধির জন্যেই নয়, নিজেকে সুস্থ রাখার জন্যেও এখন থেকে নাগামরিচের আচার যোগ করুন তবে খাদ্যাভ্যাসে যুক্ত করার আগে যথেষ্ট সচেতনতা প্রয়োজন। ঝাল সহ্য করার ক্ষমতা সবার সমান থাকেনা, ধীরে সুস্থে খেয়ে অভ্যস্ত হতে হয়। আর নাগামরিচের ঝাল খেয়ে কোনো বাড়তি সমস্যা হতে পারে কি না তাও ভাল করে যাচাই করে নেয়া ভাল।