বাংলাদেশে ভেন্টিলেটর দেয়া ৯ জনের ৮ জনই মারা গেছেন

ভোরের আলো ডেস্ক:

দেশে করোনার ছোবলে প্রতিদিনই প্রাণ ঝড়ে যাচ্ছে। আরও প্রতিদিন কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। এদের মধ্যে অনেকে গুরুতর অসুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। এ অবস্থায় চিকিৎসকরা গুরুতর অসুস্থ রোগীকে ভেন্টিলেটরের মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়ার কথা বলছেন।

তবে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃতি দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক বলেন, গত কিছুদিনের অভিজ্ঞতায় আইসিইউ এর ফলাফল ভাল পাওয়া যায়নি। এ পর্যন্ত যে ৯ জনকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল তাদের মধ্যে ৮ জনই মারা গেছেন বলেন জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবিবার (১৯ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) এর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নিয়মিত বুলেটিনে সংযুক্ত হয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন।

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৯১ জনে দাঁড়ালো। গত ২৪ ঘণ্টায় একদিনে রেকর্ড সংখ্যক ৩১২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত করা হয়েছে। ফলে দেশে এখন করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ২ হাজার ৪৫৬ জন হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ জন। মোট সুস্থ এখন ৭৫ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, নতুন করে শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ঢাকার ভেতরে ৪৪%, নারায়নগঞ্জে ৩১%এবং বাকি ২৫ শতাংশ সারা দেশে।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে বেশিরভাগেরই বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এই বয়স সীমায় আক্রান্তের হার ২৩.৪ ভাগ। এর পরে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীরা যার হার ২২ শতাংশ। যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ৫ জন পুরুষ এবং দুই জন নারী রয়েছেন। এদের মধ্যে ঢাকার ভেতরে তিন জন এবং বাকি চার জন নারায়ণগঞ্চে মারা গেছেন।

(ভোরের আলো/ফআ)