রেসিপি সর্ষে কোপ্তা

আমরা মাছে ভাতে বাংঙ্গালী!!! আমিতো বাঙ্গালী হিসাবে গর্ববোধ করি। বিদেশী মাছকেও আমরা দেশী স্টাইলে মজাদার করে তুলি, হ্যাঁ সত্যি। নিত্যদিনের খাবারও হয়ে উঠুক অসাধারণ সেটাই প্রচেষ্টা দেশী বা বিদেশী। দুনিয়ার যেখানেই যাইনা কেনো ঘরের খানা শ্রেষ্ঠ খানা তাইনা ?
রান্নাবাড়া করতে ভালোবাসি প্রতিদিন এটাকে অনেকে বেশী বেশী মনে করলেও আমার অনেক পছন্দনীয় একটা ব্যাপার। প্রবাসে যান্ত্রিক জীবনে প্রচন্ড কর্মব্যস্ততার ফাঁকে অবকাশ যাপনে কিছুটা প্রশান্তি পাওয়া ভার। কর্মব্যস্ত জীবনে একটু প্রশান্তি পেতে রান্নাবান্নার কোন তুলনা নেই।
ব্যস্ততাময় দিন পার করে এসে তাড়াহুড়োর রান্না বা ছুটির দিনে সময় নিয়ে রান্না এবং তাই পরিবারের সবাই মিলে সম্ভব হলে একসাথে বসে খাওয়াদাওয়া-এটাও আমার কাছে এক প্রকার শান্তি।

উপকরন:
পছন্দসই যেকোন মাছের কিমা ৩ কাপ। আমি এখানে স্যামোন মাছের কিমা নিয়েছি। মথে নেয়া হাফ কাপ সেদ্ধ আলু। পিয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ। কাচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ। ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ। আদা রসুনবাটা ১/২ চা চামচ। জিরা গুরা ১/২ চা চামচ। লবন পরিমাণ মত।

প্রণালি:
এবার সব উপকরন একত্রে মেখে কোপ্তার আকারে তৈরী করে নিয়ে ডুবো তেলে ভালো করে ভেজে তুলে রাখুন। এই ফাঁকে কশানো সর্ষে তৈরী করে নেই।
কশানো সর্ষের জন্য যা যা দরকার – হলুদ রঙের সর্ষে ১ কাপ ভালো করে ধুয়ে বেটে নেয়া বা পেস্ট করে নেয়া। কুচানো পিয়াজ ১ কাপ। কুচানো টমেটো ১/২ কাপ। কুচানো ধনেপাতা ২ টেবিল চামচ। আদা বাটা ১/২ চা চামচ। রসুন বাটা ১/২ চা চামচ। জিরা গুড়া ১ চা চামচ। মরিচ গুড়া ১/২ চা চামচ। হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ। তেল ৩ টেবিল চামচ। কাচামরিচ চেরা ৪-৫ টি। লবন পরিমান মত।

রন্ধন প্রণালি :
প্রথমে ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে তাতে পেয়াজ কুচি লাল করে ভেজে নিয়ে তার মধ্যে পেস্ট করা সর্ষে, জিরা গুড়ো, আদা বাটা, রসুন বাটা এবং পরিমাণ মত লবন দিয়ে একটু ভেজে হলুদ ও মরিচ গুরা দিন। তারপর কুচানো টমেটো দিয়ে নেরেচেরে একটু কষান। এবার ১/২ কাপের একটু বেশী পানি দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষাতে হবে অল্প আঁচে। তেল উপরে উঠে এলে কোপ্তা গুলো দিয়ে ভালোভাবে নেরেচেরে ঢেকে দিন ৫ থেকে ৬ মিনিটের জন্য অল্প আঁচেই।
এবার ঢাকনা খুলে উপরে চেরা কাচামরিচ ও ধনে পাতা কুচি দিয়ে আরো ২ মিনিটের মত চুলোর অল্প আঁচে রাখতে হবে।
যখন দেখবেন তেল উপরে উঠে এসেছে তখন নামিয়ে পছন্দসই ডিশে ঢেলে নিন এবং গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন। রান্না করে দেখবেন দারুণ মজার এই পদ।