সিঙ্গাপুরে নবজাতকের জীবন বাঁচানোয় ২ বাংলাদেশি পুরস্কৃত

সিঙ্গাপুরে নবজাতকের জীবন বাঁচানোর জন্য বাংলাদেশি দুই শ্রমিককে ৫০০ ডলার করে পুরস্কৃত করা হয়েছে।

ময়লার স্তুপ থেকে এক নবজাতককে উদ্ধার করে জীবন বাঁচানোর জন্য সিঙ্গাপুরের মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কার্স সেন্টার (এমডব্লিউসি) বাংলাদেশের শামীম পাটোয়ারি (২৪) ও মোস্তফা কামাল (৩৪) এর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়।

শামীম ও মোস্তফা দুজনই দেশটির উত্তরাঞ্চল বেদকে পরিচ্ছন্নতাকর্মীর কাজ করেন।

সংবাদ মাধ্যম দ্য স্ট্রেইট টাইমস জানিয়েছে,  গত ৭ জানুয়ারি সকালে শামীম ও মোস্তফা গাড়িতে করে ময়লার স্তুপ থেকে ময়লা সরিয়ে নেয়ার কাজ করছিলেন। এসময় গাড়িতে একটি ময়লার ব্যাগ থেকে বাচ্চার কান্নার শব্দ শুনতে পান শামীম। পরে তিনি মোস্তফাকেও তা জানান।

পরে গাড়ি থামিয়ে ময়লার ব্যাগ ঘেঁটে সেখানে একটি বড়ো প্লাস্টিকের প্যাকেটে নড়াচড়া দেখতে পান তারা।

সুপারভাইজারকে খবর দেয়া হলে তিনি এসে প্যাকেট থেকে নবজাতকটিকে উদ্ধার করেন।

শামীম জানান, “অনেকেই পুরোনো ব্যাটারিচালিত পুতুল ফেলে দেয়। প্রায়ই আমরা ময়লার ব্যাগ থেকে পুতুলের আওয়াজ শুনি। তাই আমরা সাধারণত এরকম আওয়াজ শুনলে ব্যাগগুলোকে ফেলেই দেই। কিন্তু আজকে এমন কান্নার আওয়াজ শুনে আমরা ভয় পেয়ে যাই।”

দেশটির সংবাদ মাধ্যম নিউ পেপারকে শামীম জানান, এ কাজের জন্য কোনো পুরস্কার পাবেন এমনটা তিনি আশা করেননি। এমনকি বাংলাদেশে পরিবারের সদস্যদেরকেও তিনি এ ঘটনার ব্যাপারে কিছু জানাননি।

তিনি বলেন, “আমরা একটি শিশুর জীবন বাঁচিয়েছি। আশা করি মানুষের প্রয়োজনে অন্যদের এগিয়ে আসতে এই কাজ উৎসাহিত করবে”।

সংবাদ মাধ্যম দ্য স্ট্রেইট টাইমস জানিয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুটি বর্তমানে সুস্থ আছে। পুলিশ তার বাবা-মায়ের খোঁজ করছে। তবে এরই মধ্যে কমপক্ষে ছয় নারী শিশুটিকে  দত্তক নেয়ার ইচ্ছা জানিয়েছেন।