চীনে আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ফেরাতে আলোচনা শুরু

চীনে নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এ রোগের কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার বা চিকিসার কোনো খবরও এখনও পাওয়া যায়নি। ফলে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। এমনকি ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার হার কমছে এমন খবরও নেই।

চীনের বেইজিংয়ে করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে এক পর্যটক দুটি মাস্ক পড়েছেন। ২৬ জানুয়ারি ২০২০। ছবি: রয়টার্স

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে চীনের যে শহর থেকে এ ভাইরাসের উৎপত্তি, অর্থাৎ উহান শহরে ৫০০ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী আটকা রয়েছেন।

চীনে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সোমবার সকালে ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন বাংলাদেশের নাগরিক যারা চীন থেকে ফিরতে চাইবেন তাদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করার জন্য। আমরা চীন সরকারের সাথে এই বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছি। কি প্রক্রিয়ায় এটি করা হবে তা বাস্তবতার নিরিখে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সম্মতির ভিত্তিতে করা হবে। আমাদের দেশের নাগরিকদের নিরাপত্তাই আমাদের মূল লক্ষ্য। এই বিষয়ে আজকের দিনের শেষে একটি প্রাথমিক নির্দেশনা জারি করা হবে যার মূল উদ্দেশ্য থাকবে আগ্রহীদের তালিকা প্রনয়ণ।

এদিকে চীনে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে দেশটিতে বসবাসরত বা ভ্রমণরত বাংলাদেশিদের জন্য হটলাইন চালু করা হয়েছে। এর নম্বর (৮৬)-১৭৮০১১১৬০০৫।

চীনের উহান শহরের একটি মাছের বাজার থেকে এ ভাইরাসটি ছড়িয়েছে। নিউমোনিয়া-সদৃশ এ ভাইরাসটি নতুন এক ধরনের করোনা ভাইরাস। নোবেল করোনা ভাইরাস, উহান করোনা ভাইরাস, উহান ফ্লু, উহান সি ফুড মার্কেট নিউমোনিয়া ভাইরাস ও উহান নিউমোনিয়া নামে বিশ্বব্যাপী পরিচিত হয়েছে ভাইরাসটি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একে বলছে 2019-nCoV।