ডাউন পেমেন্ট নয়, ‘স্ট্রেসটেস্ট’-ই বাড়ী কেনার প্রধান অন্তরায়

লিখেছেন রিয়েল্টর শিহাব উদ্দিন 

বাড়ীর মর্টগেজের সুদের হার স্থান, কাল এবং পাত্র ভেদে ভিন্ন হয়। কোন প্রতিষ্ঠান থেকে মর্টগেজ নেয়া হচ্ছে, কখন মর্গেজ নেয়া হচ্ছে এবং মর্টগেজ গ্রহীতার ক্রেডিট স্কোর কত তার ভিত্তিতেই নির্ধারিত হয় মর্টগেজের সুদের হার। ক্রেডিট স্কোর ভাল থাকলে ভাল রেটে মর্টগেজ পাওয়া যায়। তবে যে বিষয়টা সম্প্রতি বাড়ী কিনতে আগ্রহীদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে সেটা হচ্ছে মর্টগেজ গ্রহণের জন্য বাধ্যতামূলক কোয়ালিফাইং স্ট্রেস টেস্ট। ব্যাংক অফ কানাডার নির্ধারিত (যা মার্কেট রেটের প্রায় দ্বিগুন) উচ্চ হারে বাড়ী ক্রেতাকে প্রাথমিক ভাবে উত্তীর্ণ হতে হয়। ফলে ‘স্ট্রেস টেস্ট’ তার মর্টগেজ এমাউন্টকে ছোট করে দেয় এবং অনেকের ক্ষেত্রেই বাড়ী কেনার প্রতিবন্ধক হয়ে যায়। যদিও এ হারে গ্রহীতাকে পরিশোধ করতে হয়না, তথাপি সেটা বাড়ী কেনার আগে ক্রেতার জন্য এক দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠে।


দুই বছর আগে ২০১৮ সালের জানুয়ারীতে কার্যকর হওয়া এই ‘স্ট্রেস টেস্ট’কে বাড়ী কেনার ক্ষেত্রে অন্যতম অন্তরায় বিবেচনা করা হয়। সিয়াটল ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান Zillow ও IPSOS এর এক সাম্প্রতিক জরিপে দেখা গেছে, ৯২ শতাংশ কানাডিয়ান বাড়ির মালিকানার ক্ষেত্রে কমপক্ষে একটি অন্তরায় দেখেন এবং এর শীর্ষ দুটি উদ্বেগই মর্টগেজ এর প্রক্রিয়া সম্পর্কিত।
বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে অন্যান্য অনুভূত বাধাগুলির মধ্যে রয়েছে ডাউন পেমেন্ট (৬৬%), ঋণগ্রস্থতা (৫৬%), চাকুরী নিরাপত্তার অভাব (৪৭%), প্রপার্টি ট্যাক্স (৪৬%), সেটেল হতে না পারা (১৫%) এবং পছন্দনীয় স্থানে পছন্দসই বাড়ী না পাওয়া (১৩%) অন্যতম। অবশ্য ৮% কানাডিয়ান মনে করেন যে, বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে তাদের কোনও বাধা নেই। তারা এমনি এমনি বাড়ী কেনার ঝামেলায় যাচ্ছেন না।
তবে এই ‘স্ট্রেস টেস্ট’কে বাজে শব্দ বা ক্রেতাদের আতঙ্ক মনে করা হলেও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি এটিকে জনগণের আমানতের অর্থের নিরাপত্তার কৌশল হিসেবে বিবেচনা করে। কারণ বর্তমান রিয়েল এস্টেট মার্কেটে ক্রেতার অভাব নেই। তাই যে ক্রেতাকে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি তার মর্টগেজকৃত অর্থকে নিরাপদ বিনোয়োগ হিসেবে ভাববে, তাকেই তারা মর্টগেজ দিবে। বাস্তব সত্য হচ্ছে এই মার্কেটে বর্তমানে নগদ অর্থ কিংবা বিশাল ডাউন পেমেন্ট দিয়ে বাড়ী কেনার লোকের অভাব নেই। ব্যাংক কোনো প্রোপার্টিতে কারো মর্টগেজ আবেদন অগ্রাহ্য করলে পরবর্তী সপ্তাহেই অপেক্ষাকৃত অধিক

সঙ্গতি সম্পন্ন আরেকজন ক্লায়েন্ট পেয়ে যাচ্ছে। ফলে কম সঙ্গতি সম্পন্ন ক্লায়েন্টরা হতাশ হলেও ব্যাংকগুলি ঝুঁকি ও ঝামেলা মুক্ত থাকতে পারছে।

 

 

 

লেখক : প্রকৌশলী শিহাব উদ্দিন, রিয়েল এস্টেট ব্রোকার, ৫১৪ ৭১৫ ৬৯৪৪