খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে নেতাকর্মীদের আনন্দ নেই

কানাডা বিএনপির বিজয় দিবসের আলোচনায় অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবী

ভোরের আলো রিপোর্ট: বিজয় মানে আনন্দ। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের মনে সে বিজয়ের আনন্দ নেই। গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে বিএনপির নেতাকর্মীরা আনন্দে থাকতে পারে না। তিনবারের প্রধানমন্ত্রীকে মুক্ত করতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদার করা প্রয়োজন। বক্তারা অবিলম্বে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবী করেন। গত সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় রাতে টরন্টোর ডেনফোর্থে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) কানাডা শাখার উদ্যোগে বিজয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিএনপি নেতারা এসব কথা বলেন। বিএনপি নেতা আহাদ খন্দকারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে মাহবুবুর রব চৌধুরী, রেশাদ চৌধুরী, আখলাক হোসেন, নূরুল ইসলাম, এজাজ আহমেদ খান, জাকির হোসেন খান, মমিনুল হক মিলন, শহিদুর রহমান, তাহমিনা আক্তার চৌধুরী,
এমএইচ মামুন, মাশরুল হোসেন রিপন, মাহবুব চৌধুরী রনি, নাজমা হক, মঈন চৌধুরী, ড. সিরাজুল হক চৌধুরী, আবু জহির মোহাম্মদ সাকিব ও আব্দুল মান্নান বক্তব্য রাখেন। জাকারিয়া রশীদ চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আখলাক হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, সুবিধাবাদি রাজনীতি দিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। মুক্ত করতে হলে রক্ত ঝরাতে হবে। দেশপ্রেমিক সকল মানুষকে এক হতে হবে। একতাবদ্ধ হয়ে ফ্যাসিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে নামার এখনই সময়। সিরাজুল হক চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে শুধু সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কারাবন্দি নন দেশের সব মানুষ এখন কারাবন্দি। এ কারাগার থেকে মুক্তি পেতে হাসিনা সরকারকে হটাতে হবে। ভোটের অধিকার হরনকারি সরকারের কাছ থেকে ন্যায় বিচার আশা করা যায় না। এজাজ খান বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার ইস্যুতে আমরা সবাই একতাবদ্ধ। জালিম হাসিনা সরকারকে বিদায় করতে আমাদের পদক্ষেপ নেয়ার বিকল্প নেই। মামুনুর রশীদ মামুন বলেন, বাংলাদেশ এখন ভারতের অঙ্গরাজ্য। দেশের স্বাধীনতা বলে কিছু নেই। বাংলাদেশ এখন হ্যামিলনের বাশিওয়ালার অপেক্ষায় আছে। বাঁশিওয়ালা ফু দিলেই দেশের স্বাধীনতা আসবে। সভাপতির বক্তব্যে আহাদ খন্দকার বলেন, ফ্যাসিসবাদী সরকারকে আন্দোলন ছাড়া হটানো যাবে না। খালেদা জিয়ার মুক্তি জন্য আন্দোলনের বিকল্প নেই। কানাডা বিএনপি কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদারে পদক্ষেপ নেবে। আশা করছি সহকর্মী সবাইকে গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন প্রচেষ্টায় পাশে পাবো। আলোচনা শেষে মুক্তিযুদ্ধে নিহত সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত এবং সম্প্রতি নিহত বিএনপি নেতা সাদেক হোসন খোকা, কবির মুরাদসহ অনেকের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।