জনমত ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্তের পক্ষে: পেলোসি

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, জনমত এখন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তের পক্ষে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে ট্রাম্পের ফোনালাপের নতুন তথ্য প্রকাশের পর জনমত রিপাবলিকান প্রেসিডেন্টের বিপক্ষে চলে গেছে বলে গতকাল শনিবার দাবি করেন ন্যান্সি পেলোসি। চলতি সপ্তাহেই ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তের পক্ষে সমর্থন দেন পেলোসি। ফের ক্ষমতায় আসতে ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কাছে রাজনৈতিক সুবিধা চেয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন ইস্যুতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন-প্রক্রিয়া শুরু করতে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদের অন্যান্য সদস্যরা চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন। তবে তাতে সম্মত ছিলেন না পেলোসি। এ ব্যাপারে তিনি সতর্ক দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু শেষমেশ তিনিই ইউক্রেন ইস্যুতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তের নির্দেশ দেন। সংবাদভিত্তিক ওয়েবসাইট টেক্সাস ট্রিবিউন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পেলোসি বলেন, জনমতের জোয়ার পুরোপুরি বদলে গেছে। ইউক্রেন ইস্যুতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আসা অভিযোগ ও প্রশাসনের মনোভাব দেখে মার্কিন জনগণ ভিন্ন সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। পেলোসি আরও বলেন, ইউক্রেন ইস্যুতে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তিনি দ্রুততার সঙ্গে তাঁর আগের অবস্থান থেকে সরে ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্তের পক্ষে মত দেন। পেলোসি বলেন, রাজনৈতিক সুবিধা পেতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট যে ইউক্রেনের সামরিক সহায়তা বন্ধ করেছিলেন, তা পানির মতো পরিষ্কার। গত ২৫ জুলাই ট্রাম্প ইউক্রেনের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন। ওই সময় ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রধান ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে ট্রাম্প ফোনে চাপ দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এই তদন্ত শুরু না হলে ইউক্রেনের জন্য সামরিক সাহায্য স্থগিত রাখা হবে, ট্রাম্প এমন হুমকিও দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ট্রাম্পের দাবি, বাইডেন ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকার সময় ইউক্রেনের একটি গ্যাস কোম্পানির ব্যাপারে সে দেশের সরকার যে তদন্ত শুরু করে, তা বন্ধে তিনি (বাইডেন) চাপ প্রয়োগ করেন। বাইডেনদের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। ন্যান্সি পেলোসি অভিযোগ করেছেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বাইডেনকে ঘায়েল করতে ট্রাম্প বিদেশি শক্তির সাহায্য চেয়েছেন। সে ক্ষেত্রে দর-কষাকষিতে ইউক্রেনে মার্কিন সামরিক সহায়তাকে ব্যবহার করেছেন তিনি।