জালালাবাদের নির্বাচন ২৭ অক্টোবর

জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনক-এর নির্বাচন কমিশন গত ৯ সেপ্টেম্বর এসোসিশনের এক্টোরিয়াস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে বিকেল ৬টায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার মঞ্জুর চৌধুরীসহ কমিশনের অন্য সদস্যদের মধ্যে আহমদ এ হাকিম (সিলেট), ইকবাল আমেদ মাহবুব (সুনামগঞ্জ), সৈয়দ কামাল উদ্দিন আহমদ (হবিগঞ্জ) উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া সংগঠনের সেক্রেটারি জুয়েল চৌধুরী ও আইন এবং আন্তর্জাতিক সম্পাদক জ্যোতির্ময় দত্ত মিশুক উপস্থিত ছিলেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বক্তব্যের প্রারম্ভেই জালালাবাদবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা জানিয়ে পাশে উপবিষ্ট কমিশনের অন্য সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং প্রত্যেক সদস্যসহ জালালাবাদের সেক্রেটারি শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।প্রধান নির্বাচন কমিশনার তার বক্তব্যে আগামী ২৭ অক্টোবর নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা করেন। এবারে নির্বাচনে আজীবন সদস্য ৪১০ জন ও সাধারণ সদস্য দুই হাজার ৮৭১-সহ মোট তিন হাজার ২৮৪ জন সদস্য ভোটে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। ভোটকেন্দ্রের ব্যাপারে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ভোটের সংখ্যানুপাতে একটি ভোট কেন্দ্র হবে। ভোটের নির্বাচনী বাজেট এখন কমিটির কাছে দেয়া হয়নি। তবে নির্বাচন মেশিনে হবে না ব্যালটে হবে কমিশন এখনও নিশ্চিত নয়। সময়ে সেটা বলে দেবে সম্মেলনে বক্তব্যে উল্লেখ করেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার তার বক্তব্যে নির্বাচনে যারা অংশগ্রহণ করবে তাদের অবগতির জন্য তিনি বলেন, মনোনয়নপত্র প্রতি প্যাকেজ ১৫০ ডলার। মনোনয়নপত্র জমাদানকালে সভাপতি পদপ্রার্থী প্রতিজনে দুই হাজার ডলার। সহসভাপতি পদপ্রার্থি প্রতিজনে এক হাজার ৫০০ ডলার। সেক্রেটারি পদপ্রার্থী এক হাজার ৭০০ ডলার। অন্যসব সম্পাদকীয় পদে প্রতি জনে এক হাজার ১০০ ডলার। চার জেলার চারজন সদস্য প্রার্থী, প্রতি জন এক হাজার ৮০০ ডলার করে মনোনয়নপত্রের সাথে জমা দিতে হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, আগামী সপ্তাহে নির্বাচনী সংবাদপত্রে বিস্তারিত জানানো হবে। সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ ইচ্ছুক প্রার্থী ২২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত জালালাবাদের অস্থায়ী কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। মনোনয়নপত্র জমা নেয়া হবে ২৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ২ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা জালালাবাদের অস্থায়ী কার্যালয়ে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য করার জন্য জালালাবাদবাসীর সবার সাহায্য ও সহযোগিতা কামনা করেন।