বাংলাদেশ-কানাডা বাণিজ্য ফোরামে বেসিস

কানাডার টরন্টোস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এবং অন্টারিও চেম্বার অব কমার্সের (ওসিসি) যৌথ ব্যবস্থাপনায় টরন্টো শহরে সম্প্রতি প্রথমবারের মত বাংলাদেশ-কানাডা বাণিজ্য ফোরাম-২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত ফোরামে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ১৯ সদস্যের বাংলাদেশ বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।এতে অংশ নেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া, এনডিসি, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মিজানুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর এবং সহ-সভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান।

কানাডার সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের পর এই প্রথম দুই দেশের মধ্যে এধরনের একটি বাণিজ্য ফোরাম অনুষ্ঠিত হল। ফোরামে প্রথম প্যানেলের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল কিভাবে কানাডা বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণ করতে পারে, যা বাংলাদেশ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন (বেসিস) এর সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর সঞ্চালনা করেন।

দ্বিতীয় প্যানেলের আলোচ্য বিষয় ছিল কিভাবে বাংলাদেশ কানাডার সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণ করতে পারে। এই প্যানেল আলোচনাটি সঞ্চালনা করেন ওসিসি প্রেসিডেন্ট রকো রসি।

ফোরামের অতিথি অন্টারিও প্রদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, কর্মসংস্থান ও বাণিজ্যমন্ত্রী ভিক্টর ফেডালি তার বক্তৃতায় বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড় অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের উপর জোর দেন।

এ সময়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ ১০% জিডিপি প্রবৃদ্ধির দ্বারপ্রান্তে। এ ফোরামের উদ্দেশ্য হলো উভয় দেশের ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীদের মধ্যে সেতুবন্ধন স্থাপন করা, যাতে তারা একে অপরের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য সম্পর্কিত তথ্য আদান প্রদান করতে পারে এবং তুলনামূলক সুবিধাজনক খাতগুলো চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। বেসিস সভাপতি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকারের সাথে একযোগে কাজ করছে বেসিস। বাংলাদেশের সফটওয়্যার রপ্তানির অন্যতম দেশ কানাডা। কানাডার সাথে বাণিজ্য উন্নয়নে এ ফোরাম খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এক্সপ্লোরিং ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট অব সাসকাচুয়ান প্রোভিন্স অব কানাডা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে অংশ নেন বেসিস সভাপতি। এসময় বেসিস সভাপতি কানাডায় বিশ্বমানের বাংলাদেশি সফটওয়্যার ব্যবহারের আহ্বান জানান। বেসিস সভাপতির সাথে সহমত প্রকাশ করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

বেসিস সভাপতি বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সাথে কানাডার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সংযোগ স্থাপনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, এতে করে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি পাবে।

এছাড়া, কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এবং অনারারি কনসালকে বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তির খাতের অগ্রগতির সম্পর্কে অবহিত করেন এবং বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতির চিত্র কানাডায় তুলে ধরার আহ্বান জানান। এ বিষয়ে বেসিস কানাডার বাংলাদেশ হাইকমিশনকে সর্বাত্মক সাহায্য করবে বলেও জানান বেসিস সভাপতি।

বাংলাদেশ-কানাডা বাণিজ্য ফোরাম-২০১৯ এ কানাডার বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানির শীর্ষ নির্বাহীবৃন্দ, কানাডিয়ান ব্যবসায়ী, বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান, শিল্পপতি, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ নির্বাহীবৃন্দ, সফল বাংলাদেশি কানাডিয়ান ব্যবসায়ীসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।