ইউএস ওপেনের রানি বিয়াঙ্কা

যেই ভাবা সেই কাজ। ইউএস ওপেনের একটা নকল চেক বানালেন নিজের জন্য। তাতে নিজের নাম বসালেন। বসাতে বসাতে ঘুণাক্ষরেও কি ভেবেছিলেন, পাঁচ বছরের মধ্যে নকল নয়, আসল চেকই জিততে পারবেন বিয়াঙ্কা আন্দ্রিস্কু?

কতভাবেই না রূপকথার গল্পগুলো সত্যি হয়ে যায়। বিয়াঙ্কার রূপকথার গল্পটা ঠিক এমন। আর সেই রূপকথাকে তিনি পরিপূর্ণতা দিয়েছেন আর কাউকে নয়, সেই সেরেনা উইলিয়ামসকে হারিয়ে। যে সেরেনার আধিপত্য দেখে তারও সাধ হয়েছিল আমেরিকা জয় করার, আর্থার অ্যাশের রানি হওয়ার!

সেরেনাকে ৬-৩, ৭-৫ সেটে হারিয়ে আজ ইউএস ওপেনের নতুন রানি হয়েছেন বিয়াঙ্কা আন্দ্রিস্কু। সেরেনাকে হারালেন সেরেনার নিজের উঠোনেই। ১৯ বছর বয়সী আন্দ্রিস্কুর এটা প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা। পুরুষ ও নারী মিলিয়ে ইতিহাসের প্রথম কানাডিয়ান হিসেবে কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন এই তারকা। এর আগে পুরুষ এককে ২০১৬ সালে মিলোস রাওনিচ ও নারী এককে ২০১৪ সালে ইউজিন বুচার ফাইনালে উঠলেও শিরোপা জিততে পারেননি।

২০০৬ সালে মারিয়া শারাপোভার পর এই প্রথম কোনো টিনএজ তারকা গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন।

ওদিকে মেয়ের মা হওয়ার পর থেকে সেরেনা যেন ফাইনাল জিততে ভুলে গেছেন। মেয়ে হওয়ার পর এই নিয়ে চারবার গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে হারলেন। গত বছর এই ইউএস ওপেনের ফাইনালেই হেরেছিলেন জাপানি তারকা নাওমি ওসাকার কাছে। উইম্বলডনে পারলেন না অ্যাঞ্জেলিক কেরবারের কাছে। এ বছরের উইম্বলডনেও হার মেনেছেন সিমোনা হালেপের কাছে। আর এবার তো বিয়াঙ্কা আন্দ্রিস্কু ইতিহাসই গড়ে ফেললেন।

ফাইনালে জিতলে ২৪টা গ্র্যান্ড স্লাম জেতা হয়ে যেত সেরেনার। ইতিহাসে এক মার্গারেট কোর্ট ছাড়া আর কোনো টেনিস তারকার এত গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা নেই। কোর্টকে টপকাতে আরেকটু অপেক্ষা করতে হচ্ছে সেরেনাকে।

বছর শুরু করেছিলেন নারী এককের র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৭৮তম স্থানে থেকে। বছর শেষ করলেন ইউএস ওপেনের শিরোপা জিতে। মাত্র নয় মাসের ব্যবধানে কত কিছুই না হয়ে গেল!